কিভাবে একজন প্রফেশনাল ডেভেলপার হবেন ?

কিভাবে একজন প্রফেশনাল ডেভেলপার হবেন ?

বর্তমানে ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেক্টরের এক হট নাম ওয়ার্ডপ্রেস। এটা একটা কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সংক্ষেপে সিএমএস বলে। এটার বর্তমান মার্কেটভ্যালু যেমন তুঙ্গে এটা দিন দিন বাড়ছে। বর্তমানে পপুলার সব সিএমএস এর ভিতর ওয়ার্ডপ্রেস সবার চেয়ে এগিয়ে। এটা ছাড়াও আরো যেসব পপুলার সিএমএস আছে তার মধ্যে জুমলা, ধ্রুপাল, ম্যাজেন্টো, ওপেনকার্ট, শপিফাই ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। বর্তমানে ওয়ার্ডপ্রেসের পপুলারিটি যেমন বাড়ছে, তেমনিভাবে এই সিএমএস এ কাজের চাহিদা এবং ডেভেলপারও বাড়ছে। ওয়ার্ডপ্রেসের মাধ্যমে খুব সহজেই একটা ওয়েবসাইট বানিয়ে ফেলা যায় এই কারনে বর্তমানে মার্কেটে ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। ওয়ার্ডপ্রেস – শুরুর আগে যেকোন কিছু শেখার সময় আমাদের প্রধান সমস্যা হলো একাগ্রতার সাথে শিখতে পারিনা বা লেগে থাকতে পারিনা। এটা করলে শুধু ওয়ার্ডপ্রেসই না, কোন টেকনলজিই আপনি ভাল্ভাবে শিখতে পারবেন না। তখন হাতুড়ে ডাক্তারের মত আমাদের পরিচয় হবে হাতুড়ে ডেভেলপার। হাতুড়ে ডাক্তারের কাছে যেমন একবার ঘুরে এসে আর কেও যেতে চায়না রোগ ভাল না হওয়ার কারনে, আপনিও যদি হাতুড়ে ডেভেলপার হয়ে কাজের চিন্তা করেন তাহলে ক্লায়েন্ট হারাতে হারাতে একটা সময় আপনার ক্যারিয়ার এত ছোট হয়ে আসবে যে পরে সেটা আফসোসের বড় কারন হবেই। এজন্য শর্টকাট চিন্তা আগেই বাদ দিতে হবে। হবে মানে হবেই। শেখার কোন শর্টকাট নেই। সময় নেন, টেকনোলজি সম্পর্কে ভালভাবে বোঝেন, একটা শেষ হওয়ার পরেই আরেকটা শুরু না করে আগে যেটা শিখলেন সেটা দিয়ে ছোটখাট হলেও কিছু প্রজেক্ট করে ফেলেন, তারপর আস্তে আস্তে সামনে আগান। সিড়ি একটা একটা করে পার না হয়ে একবার দুই তিন ধাপ করে উঠলে বেশিদূর এগতে পারবেন না। কি কি জিনিস শেখা লাগবে? ১। ওয়েব ডিজাইন – এইচটিএমএল, সিএসএস + সিএসএস ফ্রেমওয়ার্ক (বুটস্ট্রাপ, টেলউইন্ড সিএসএস, ফাউন্ডেশন ইত্যাদি + জাভাস্ক্রিপ্ট + জেকুয়েরি ২। ব্যাকইন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ – পিএইচপি ৩। ডাটাবেজ – মাই-এসকিউএল ৩। ওয়ার্ডপ্রেস থিম কাস্টমাইজেশন ৪। ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপমেন্ট ৫। ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন কাস্টমাইজেশন ৫। ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভেলপমেন্ট ব্যাস। এই বিষয়গুলো কমপ্লিট শিখতে পারলেই আপনি একজন পারফেক্ট ফুলস্ট্যাক ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার হিসেবে স্কিলফুল হতে পারবেন, ইনশাআল্লাহ।</p>

বর্তমানে ওয়েব ডিজাইন & ডেভেলপমেন্ট সেক্টরের এক হট নাম ওয়ার্ডপ্রেস। এটা একটা কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সংক্ষেপে সিএমএস বলে। এটার বর্তমান মার্কেটভ্যালু যেমন তুঙ্গে এটা দিন দিন বাড়ছে। বর্তমানে পপুলার সব সিএমএস এর ভিতর ওয়ার্ডপ্রেস সবার চেয়ে এগিয়ে। এটা ছাড়াও আরো যেসব পপুলার সিএমএস আছে তার মধ্যে জুমলা, ধ্রুপাল, ম্যাজেন্টো, ওপেনকার্ট, শপিফাই ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।
বর্তমানে ওয়ার্ডপ্রেসের পপুলারিটি যেমন বাড়ছে, তেমনিভাবে এই সিএমএস এ কাজের চাহিদা এবং ডেভেলপারও বাড়ছে। ওয়ার্ডপ্রেসের মাধ্যমে খুব সহজেই একটা ওয়েবসাইট বানিয়ে ফেলা যায় এই কারনে বর্তমানে মার্কেটে ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে।


ওয়ার্ডপ্রেস – শুরুর আগে


যেকোন কিছু শেখার সময় আমাদের প্রধান সমস্যা হলো একাগ্রতার সাথে শিখতে পারিনা বা লেগে থাকতে পারিনা। এটা করলে শুধু ওয়ার্ডপ্রেসই না, কোন টেকনলজিই আপনি ভাল্ভাবে শিখতে পারবেন না। তখন হাতুড়ে ডাক্তারের মত আমাদের পরিচয় হবে হাতুড়ে ডেভেলপার। হাতুড়ে ডাক্তারের কাছে যেমন একবার ঘুরে এসে আর কেও যেতে চায়না রোগ ভাল না হওয়ার কারনে, আপনিও যদি হাতুড়ে ডেভেলপার হয়ে কাজের চিন্তা করেন তাহলে ক্লায়েন্ট হারাতে হারাতে একটা সময় আপনার ক্যারিয়ার এত ছোট হয়ে আসবে যে পরে সেটা আফসোসের বড় কারন হবেই।
এজন্য শর্টকাট চিন্তা আগেই বাদ দিতে হবে। হবে মানে হবেই। শেখার কোন শর্টকাট নেই। সময় নেন, টেকনোলজি সম্পর্কে ভালভাবে বোঝেন, একটা শেষ হওয়ার পরেই আরেকটা শুরু না করে আগে যেটা শিখলেন সেটা দিয়ে ছোটখাট হলেও কিছু প্রজেক্ট করে ফেলেন, তারপর আস্তে আস্তে সামনে আগান। সিড়ি একটা একটা করে পার না হয়ে একবার দুই তিন ধাপ করে উঠলে বেশিদূর এগতে পারবেন না।

 

কি কি জিনিস শেখা লাগবে?

১। ওয়েব ডিজাইন – এইচটিএমএল, সিএসএস + সিএসএস ফ্রেমওয়ার্ক (বুটস্ট্রাপ, টেলউইন্ড সিএসএস, ফাউন্ডেশন ইত্যাদি + জাভাস্ক্রিপ্ট + জেকুয়েরি
২। ব্যাকইন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ – পিএইচপি
৩। ডাটাবেজ – মাই-এসকিউএল
৩। ওয়ার্ডপ্রেস থিম কাস্টমাইজেশন
৪। ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপমেন্ট
৫। ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন কাস্টমাইজেশন
৫। ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভেলপমেন্ট
ব্যাস। এই বিষয়গুলো কমপ্লিট শিখতে পারলেই আপনি একজন পারফেক্ট ফুলস্ট্যাক ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার হিসেবে স্কিলফুল হতে পারবেন, ইনশাআল্লাহ।

 

ওয়েব ডিজাইন –

ওয়েব ডিজাইন হলো ওয়েবসাইট এর একদম প্রাথমিক কাজ। ডেভেলপমেন্ট এর আগে প্রথমে HTML এর মাধ্যমে ওয়েবসাইটের মার্কআপ রেডি করা হয়। তারপর CSS এর মাধ্যমে এতে ডিজাইন এপ্লাই করা হয়। আমরা ইন্টারনেটে যে ওয়েবসাইটগুলো দেখে থাকি সেগুলো যদি কোনরকম কালার, সাইজ, এলাইনমেন্ট, এনিমেশন ছাড়া শুধু সাদামাটা কনটেন্ট দেখি তাহলে সেই সাইটে আমরা ভুল করেও আর দ্বিতীয়বার ভিজিট করব না। ওয়েবসাইটের সব কনটেন্ট, ইমেজ, ফাইলস, ফরম ইত্যাদি সাজানো গোছানো থাকলে ওয়েবসাইট দেখতে সুন্দর লাগে এবং আমরা সহজেই সব ইনফরমেশন খুজে পাই।
এর পর ঠিক করতে হবে যে আপনি কি শুধু ফ্রন্ট ইন্ড ডেভেলপার হবেন নাকি ফুলস্ট্যাক ডেভেলপার হবেন। ফ্রন্ট ইন্ড ডেভেলপার বলতে আমরা ওয়েবসাইট ব্রাউজ করার সময় যেটা কম্পিউটার বা মোবাইল ব্রাউজারে দেখতে পাই সেই ইন্টারফেস ডিজাইন করাকে ফ্রন্ট ইন্ড ডেভেলপার বলা হয়। যেমন কোন টেক্সট এর সাইজ কত হবে, দুইটা এলিমেন্ট এর মাঝে স্পেসিং কত হবে, ভিডিও, ইমেজের সাইজ কত হবে ইত্যাদি এর মাধ্যমে সুন্দর করে ডিজাইন করাকে ফ্রন্ট ইন্ড ডেভেলপার বলে।
আর ব্যাকইন্ড ডেভেলপার হলো ওয়েবসাইটে যেসব ডাটা থাকে সেগুলো কোন একটা সার্ভারে রেখে সেখান থেকে বিভিন্ন সেকশন এবং পেজে ডাইনামিক ভাবে শো করানো কে ব্যাকইন্ড ডেভেলপমেন্ট বলে। আমরা যদি এইচটিএমএল দিয়ে ডিজাইন করা কোন একটা স্ট্যাটিক পেজ থেকে ডাটা চেঞ্জ করতে হলে সরাসরি কোড এর ভিতর থেকে সেটা করতে হবে। কিন্তু ডেভেলপমেন্টের মাধ্যমে আপনার কোড কে সম্পূর্ণরূপে সার্ভারের সাথে কানেক্ট করা হয় যাতে যে কোন ইনফরমেশন খুব সহজেই মোডিফাই, চেঞ্জ করা যায়।

 

ওয়েব ডিজাইনের সংক্ষিপ্ত আউটলাইন –

  1. HTML
  2. Wireframing
  3. CSS basic styling
  4. CSS3 Animation Effect
  5. PSD to HTML & Figma to HTML
  6. JavaScript for Web Designers
  7. jQuery & jQuery plugins
  8. Bootstrap 5
  9. Tailwind CSS
  10. Section Based Design
  11. SASS/SCSS
  12. Git & GitHub

পিএইচপি

পিএইচপি হলো সার্ভারসাইড ল্যাঙ্গুয়েজ। এর সাথে ব্রাউজারের কোন কানেকশন নেই। এটা সম্পূর্ণ সার্ভারে রান হয় এবং ফ্রন্ট ইন্ড থেকে পাঠানো একশন অনুযায়ী সে কমান্ড বা কুয়েরি রিসিভ করে সেই অনুযায়ী ডাটা ফ্রন্ট ইন্ডে পাঠিয়ে দেয়। এছাড়া ডাটা চেঞ্জ, ডিলেট করা সহ অন্যান্য কাজগুলো পিএইচপি এর মাধ্যমে করা হয়। এছাড়াও আরো অসংখ্য সার্ভার সাইড ব্যাক ইন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ আছে। তবে ওয়ার্ডপ্রেস পিএইচপি বেজড এবং এটার ন্যাটিভ ল্যাঙ্গুয়েজ হিসেবে সার্ভার সাইডে পিএইচপি রান হচ্ছে।
 

PHP এর সংক্ষিপ্ত আউটলাইন –

  1. Environment Setup
  2. Basic PHP
  3. Outputs
  4. Variables
  5. Data Types
  6. Constant
  7. Comments
  8. Operator
  9. Function
  10. Loop
  11. Condition
  12. Array
  13. Array Function
  14. Regular Expression
  15. Super global
  16. Form Handling
  17. PHP File System
  18. Email Sending
  19. Error Handling
  20. Debugging
  21. Date Time
  22. Working with JSON Data
  23. PHP Core Settings
  24. Security
  25. Resources

 

মাই-এসকিউএল

মাই-এসকিউএল হলো ডাটাবেজ যেখানে আমাদের ওয়েবসাইটের সব ডাটা স্টোর করা থাকে। ওয়ার্ডপ্রেস ন্যাটিভ ডাটাবেজ হিসেবে মাইএসকিউএল ব্যাবহার করে। এখানে ওয়েবসাইটের টেক্সট, ইমেজ, ফাইলস সহ যেকোন ডকুমেন্টস স্টোর করা থাকে। এখান থেকে প্রয়জন এবং বিভিন্ন সেকশন বা পেজের ডিজাইন অনুযায়ী ডাটা ডিসপ্লে হয়।
 

মাই-এসকিউএল এর সংক্ষিপ্ত আউটলাইন –

 

১ । ডাটাবেজ টেবিল, কলাম, কুয়েরি কি এবং এটা কিভাবে কাজ করে? 
২। ডাটাবেজ ক্রিয়েট করা।
৩। ডাটাবেজে টেবিল এবং কলাম ক্রিয়েট করা। 
৪। টেবিলে ডাটা এড করা, ডিলেট করা
৫। ডাটা আপডেট
৬। জয়েনিং
৭। মিনিমাম এবং ম্যাক্সিমাম
৮। ডাটাবেজ ইউজার
৯। ডাটা টাইপ 
১০। অটো ইনক্রিমেন্ট
১১। প্রাইমারি কী
১২। ফরেন কী
১৩। ডেট

ওয়ার্ডপ্রেস থিম কাস্টমাইজেশন

ওয়ার্ডপ্রেস হলো প্রি-বিল্ট রেডি কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। ওয়ার্ডপ্রেসের মাধ্যমে ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপ করার সময় আমাদের ওয়েবসাইটের পুরো স্ট্রাকচার থিমের উপর তৈরি করা হয়। এজন্য প্রথমেই আমাদের একটা থিম লাগবেই। ওয়ার্ডপ্রেস এর অফিশিয়াল থিম রিপোজিটরি আছে। সেখানে অসংখ্য থিম রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে আমরা ওয়েবসাইট ডিজাইন করতে পারি।
আগে থেকেই ডেভেলপ করা এই থিম গুলো আমাদের ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের ড্যাশবোর্ড থেকে প্রথমে ইন্সটল করে একটিভ করতে হয়। প্রতিটা থিমের একটা অপশন প্যানেল আছে যেখানে ওয়েবসাইট পেজের কনটেন্ট চেঞ্জ করার জন্য বিভিন্ন অপশন এড করা থাকে। এটাকে কাস্টমাইজার বলে। কোন কোন থিমে তাদের নিজস্ব অপশন প্যানেল ও থাকে।
ড্যাশবোর্ড থেকে বিভিন্ন অপশন প্যানেল চেঞ্জ করে সাইট ডেভেলপ করাকেই থিম কাস্টমাইজেশন বলা হয়। এর জন্য আপনার পিএইচপি বা ডাটাবেজ জানার কোন প্রয়োজন নেই। তবে ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কে খুব ভাল জ্ঞান থাকা আবশ্যক। কারন থিম কাস্টমাইজ করে আমরা যখন সাইটের ডিজাইন করব তখন অনেক স্টাইল হয়ত আমাদের মন মত নাও হতে পারে। আমরা যেহেতু অন্যের বানানো থিম কাস্টমাইজ করে সাইট ডেভেলপ করছি সেজন্য সেখানে আমাদের মত কালার, টেক্সট ইমেজ সাইজ হয়ত নাও পেতে পারি। সেজন্য এগুলো যাতে আমরা আমাদের পছন্দমত এপ্লাই করতে পারি এজন্য ওয়েব ডিজাইন জানা আবশ্যক।

 

থিম কাস্টমাইজেশন এর সংক্ষিপ্ত আউটলাইন –

  • ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল
  • ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড এর সাইডবার এর সব মেন্যু আইটেম সম্পর্কে জানা। 
  • পোস্ট ক্রিয়েট, আপডেট, ডিলেট করা এবং পেজে পোস্ট শো করা।
  • কমেন্টস
  • ওয়ার্ডপ্রেস মিডিয়া ফাইলস
  • পেজ ক্রিয়েট, আপডেট এবং ডিলেট করা। 
  • এপেয়ারেন্স থেকে কাস্টমাইজার সম্পর্কে ডিটেইলস জানা।
  • মেনু ক্রিয়েট কর 
  • উইজেট প্যানেল 
  • কাস্টম লোগো, হেডার, ব্যাকগ্রাউন্ড
  • ইউজার ক্রিয়েট
  • সেটিংস থেকে জেনারেল, রাইন্টিং, রিডিং এবং পারমালিংক সম্পর্কে বিস্তারিত
  • ফ্রিম থিম ইন্সটল করা 
  • ফ্রিম থিম অপশন প্যানেল (কাস্টমাইজার এবং থিমের অপশন প্যানেল)
  • ফ্রি থিমে পেজ ক্রিয়েট করা এবং পেজে বিভিন্ন কনটেন্ট ডিসপ্লে করা।
  • ডেমো কনটেন্ট আপ্লোড

ওয়ার্ডপ্রেস পেজ বিল্ডারস –

  1. Elementor
  2. WP Bakery
  3. Brizy
  4. Beaver Builder
  • পেজ বিল্ডার এর বিভন্ন মডিউল কাস্টমাইজ করা
  • পেজ বিল্ডারের মাধ্যমে পেজের বিভিন্ন সেকশন ডিজাইন করা। 
  • প্রিমিয়াম থিম ইন্সটল করা
  • প্রিমিয়াম থিম অপশন প্যানেল 
  • প্রিমিয়াম থিম সেটিংস
  • প্রিমিয়াম থিমের পেজ বিল্ডার 
  • প্রিমিয়াম থিমের রিকমেন্ডেড প্লাগিন এবং তার অপশনস 
  • প্রিমিয়াম থিমের পেজ বিল্ডার এর মাধ্যমে বিভিন্ন সেকশন এর ডিজাইন

ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপমেন্ট –

এতক্ষন আমরা ওয়ার্ডপ্রেস এর থিম কাস্টমাইজেশন এর যা যা আলোচনা করলাম সেটা শুধুমাত্র আগে থেকে কোন ডেভেলপারের তৈরি করা থিম। এই থিম গুলোই যেই আর্কিটেকচারের উপর কোডের মাধ্যমে ডেভেলপ করা হয়েছে সেটাকে বলা হয় থিম ডেভেলপমেন্ট। এখানে উল্লেখযোগ্য সেটা হলো উপরে কাস্টমাইজেশন সেকশনে যেসব প্লাগিন এবং পেজ বিল্ডারের কথা বলা হয়েছে সেটা থিম ডেভেলপমেন্টের অন্তরভুক্ত নয়।

থিম ডেভেলপমেন্টের আউটলাইন – 

  • ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড বেসিক
  • থিম ডেভেলপমেন্ট কোড স্ট্যান্ডারড
  • রিকুয়ারড ফাইল এবং স্ট্র্যাকচার
  • সাইট টাইটেল, ট্যাগলাইন, সাইট নেম, পেজ টাইটেল, পেজ কনটেন্ট ডায়নামিক ভাবে শো করা।
  • পোস্ট কনটেন্ট শো করা
  • থাম্বনাইল ইমেজ , মিডিয়া
  • পারমালিংক
  • হেডার, ফুটার সেকশন 
  • থিম টেমপ্লেট হায়ারারকি
  • ক্যাটাগরি 
  • ট্যাগ
  • অথরের কনটেন্ট শো করা
  • ডেট এবং ফরমেটিং
  • এক্সারপ্ট শো করা
  • সিঙ্গেল পোস্ট পেজে পোস্টের সব ডাটা শো করা
  • পেজ এর মারকাপ ডায়নামিক করা
  • পেজ টেমপ্লেট
  • একশন হুক এবং ফাংশন হুক
  • মেনু ডায়নামিক করা
  • ডায়নামিক সাইডবার উইজেট এরিয়া
  • সার্চ ফরম
  • ডায়নামিক লোগো, হেডার ইমেজ, ব্যাকগ্রাউন্ড কালার/ইমেজ
  • কাস্টম কুয়েরি (WP_Query and get_posts())
  • কাস্টম ফিল্ডস
  • কাস্টম মেটা বক্স
  • রিডাক্স/কোডস্টার ফ্রেমওয়ার্ক
  • থিম কাস্টমাইজার
  • রিকুয়ার থিম ইউজিং টিজিএম
  • থিম বয়লারপ্লেট

 

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন কাস্টমাইজেশন

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটের সব ধরনের ফাংশনালিটি এড করার যে সিস্টেম সেটাই হলো প্লাগিন। ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে কোন নিউ ফাংশন এড করার জন্য আমাদের প্লাগিন খুজতে হয়। আমাকের কাজের উপর ভিত্তি করে আমরা প্রায় সব ধরনের প্লাগিন পাই। এই প্লাগিন গুলো ওয়ার্ডপ্রেসের অফিশিয়াল প্লাগিন ডিরেক্টিরিতে পাওয়া যায়। অথবা কিছু কিছু এডভান্স ফাংশনালিটির জন্য আমাদের বিভিন্ন প্রিমিয়াম প্লাগিন বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস থেকে কিনে ব্যাবহার করতে হয়।
প্লাগিন কাস্টমাইজেশনের জন্য আমাদের আলাদা কোন কিছু জানার প্রয়োজন হয়না। আপনি যদি থিম কাস্টমাইজেশন ভাল্ভাবে শিখে থাকেন তাহলে প্লাগিন ইন্সটল করে এক্টিভ করার পর প্লাগিনের অপশন প্যানেল এর সেটিংস গুলো বুঝতে পারবেন সহজেই। প্রতিটা প্লাগিনের ফাংশনালিটি নিয়ে কাজ করার জন্য এর একটা অপশন প্যানেল থাকে। যেখান থেকে কোন সেটিংস সহজেই মোডিফাই করে আমাদের সুবিধামত আমরা প্লাগিন টা ব্যাবহার করতে পারি।

 

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভেলপমেন্ট 

প্লাগিন ডেভেলপমেন্ট হলো আমরা বিভিন্ন সময় যেসব প্লাগিন নিয়ে কাজ করি সেগুলো ডাটাবেজ থেকে ডাটা নিয়ে সেটা ডায়নামিক ভাবে আমদের সাইটের বিভিন্ন জায়গাতে এপ্লাই করে। আগে থেকে তৈরি করে রাখা প্লাগিন গুলো নিয়ে কাজ করাকে প্লাগিন কাস্টমাইজেশন বলে। আর এই প্লাগিন টা তৈরী করতে ব্যাকইন্ড থেকে কোডের মাধ্যমে ডাটা কোথায় কিভাবে কোন একশনের মাধ্যমে কিভাবে ডিসপ্লে হবে সেটা তৈরি করা।

0 Comments

আপনার মতামতটি আমাদের জানান

শেয়ার করুন
টেগ
রিলেটেড ব্লগ
  • কিভাবে একজন প্রফেশনাল ডেভেলপার হবেন ?
    কিভাবে একজন প্রফেশনাল ডেভেলপার হবেন ?
    আরো পড়ুন
  • কিভাবে একজন প্রফেশনাল  ফ্রন্টইন্ড ডেভেলপার হবেন ?
    কিভাবে একজন প্রফেশনাল ফ্রন্টইন্ড ডেভেলপার হবেন ?
    আরো পড়ুন
  • বর্তমানে ওয়েব ডিজাইনেএন্ড ডেভেলপমেন্ট সেক্টরের এক হট নাম ওয়ার্ডপ্রেস
    বর্তমানে ওয়েব ডিজাইনেএন্ড ডেভেলপমেন্ট সেক্টরের এক হট নাম ওয়ার্ডপ্রেস
    আরো পড়ুন
  • ওয়ার্ডপ্রেস ইউজার রোল ম্যানেজমেন্ট
    ওয়ার্ডপ্রেস ইউজার রোল ম্যানেজমেন্ট
    আরো পড়ুন
  • লারাভেলের CRUD Operation
    লারাভেলের CRUD Operation
    আরো পড়ুন
  • আইপি  দিয়ে কীভাবে দেশ, শহরের নাম এবং ঠিকানা  বের করা যায় ।
    আইপি দিয়ে কীভাবে দেশ, শহরের নাম এবং ঠিকানা বের করা যায় ।
    আরো পড়ুন
  • কমান্ড লাইন ব্যবহার করে লারাভেল ক্যাশ ক্লিয়ার করার পদ্ধতি
    কমান্ড লাইন ব্যবহার করে লারাভেল ক্যাশ ক্লিয়ার করার পদ্ধতি
    আরো পড়ুন